শুক্রবার | ১৪ অগাস্ট, ২০২০

ঈদেও বন্ধ থাকবে বান্দরবানের পর্যটন কেন্দ্র

প্রকাশঃ ৩০ জুলাই, ২০২০ ০৩:৩০:১৩ | আপডেটঃ ১৩ অগাস্ট, ২০২০ ০৩:৪৬:০৬  |  ১৩৪

সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবানকরোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে গত ১৮মার্চ থেকে  বান্দরবান জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় বন্ধ রয়েছে জেলার সকল পর্যটনকেন্দ্রদীর্ঘ ৪মাস বন্ধ থাকলে ও অনেকের প্রত্যাশা ছিল দীর্ঘ বন্ধ শেষে কোরবানীর ঈদে বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো খোলা হবে, কিন্তু না এবারের কোরবানীর ঈদে পর্যটকরা বান্দরবানের কোন পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমনের সুযোগ পাচ্ছে না,কেননা পরবর্তী নির্দেশনা না আসায় এবারের ঈদে বান্দরবানের সকল পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ থাকবে

 

বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো:শামীম হোসেন বলেন, এবারের কোরবানীর ঈদে বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো খোলা না রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমক প্রতিরোধে গত ১৮ মার্চ থেকে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় বন্ধ রয়েছে জেলার সকল পর্যটনকেন্দ্রতিনি আরো বলেন, পর্যটন মন্ত্রণালয় থেকে পরবর্তী নির্দেশনা আসলে আমরা বান্দরবানের সকল পর্যটনকেন্দ্র খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবো,তবে ঈদ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বান্দরবানের সকল পর্যটনকেন্দ্রবান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো:শামীম হোসেন আরো বলেন,পর্যটন ও আবাসিক হোটেল মোটেল খোলার বিষয়ে আমরা  ঈদের পরে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবো

 

এদিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ ৪ মাস বান্দরবানের পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ থাকায় প্রায় কয়েক কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরাএসবের প্রেক্ষিতে বান্দরবানের পর্যটন সংক্রান্ত কার্যক্রম পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নিতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীরা

 

বান্দরবান আবাসিক হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো:সিরাজুল ইসলাম বলেন, করোনার কারণে আমাদের পর্র্যটন ব্যবসায় ধস নেমে এসেছেবান্দরবানের শতাধিক হোটেল মোটেলের কয়েকশ কর্মচারী বেকার হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে অসহায় দিনযাপন করছেমো:সিরাজুল ইসলাম  আরো বলেন,ঈদের পরে বান্দরবানের আবাসিক হোটেল মোটেলে সংক্রমণ প্রতিরোধের ব্যবস্থা করে এবং স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে খোলা রাখার অনুমতি প্রদান করা হলে আমাদের জন্য ভালো হবে

 

বান্দরবানের পর্যটন ব্যবসায়ী কাজল কান্তি দাশ বলেন, বান্দরবানে দীর্ঘ ৪মাস পর্যটন ব্যবসায়ীরা বেকার হয়ে চরম দুর্ভোগে দিনাতিপাত করছেন, করোনার কারণে এসব ব্যবসা ৪ মাসেরও অধিক সময় বন্ধ, ফলে তাদের ব্যবসার মূলধন খাওয়া শেষতিনি আরো বলেন,এখন অধিকাংশ পর্যটন ব্যবসায়ী ধারদেনা করে সংসার চালাচ্ছেনকোরবানি ঈদের পর পর্যটন ব্যবসা খুলে দেয়া হলে পর্যটন ব্যবসায়ীরা প্রাণে বাঁচবে

 

প্রসঙ্গত,গত ৮মার্চ দেশে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার ১০দিন পর ১৮মার্চ থেকে বান্দরবানের সকল আবাসিক হোটেল মোটেল ও পর্যটনকেন্দ্র পর্যটকদের জন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয় বান্দরবান জেলা প্রশাসন

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions