শনিবার | ০১ অক্টোবর, ২০২২

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পিসিপির আহবায়ক কমিটি গঠিত

প্রকাশঃ ১৬ অগাস্ট, ২০২২ ১২:৩৪:৫৩ | আপডেটঃ ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০৬:৫৮:২৪  |  ২১৪

সিএইচটি টুডে ডট কম ডেস্ক। আজ ১৬ আগস্ট ২০২২ (মঙ্গলবার) এক বিশেষ সভার মধ্য দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে রাবি কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সদস্য বাবলু চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পিসিপির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি অংকন চাকমা, তথ্য প্রচার সম্পাদক রিপন জ্যোতি চাকমা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রোনাল চাকমা


বক্তারা বলেন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ গঠনের ক্ষেত্রে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রয়েছে। নব্বই দশকের পিসিপির গণতান্ত্রিক লড়াই সংগ্রামের উত্তাল সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ আন্দোলনকে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল

বক্তারা আরো বলেন, বর্তমানে পার্বত্য চট্টগ্রামে শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি বিরাজমান রয়েছে। প্রতিনিয়ত রাষ্ট্রীয় নিপীড়ন-নির্যাতন, পর্যটনের নামে ভূমি বেদখল, খুন-গুম, নারী ধর্ষণ, রাতের আঁধারে তল্লাশীর নামে হয়রানি, জেলগেট থেকে গ্রেফতারের মতো ঘটনা ঘটছে। নানা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অর্থনৈতিক শোষণ সমাজে চরম বৈষম্যের সৃষ্টি করছে।


অন্যদিকে, নানা স্বশস্ত্র গ্রুপ সৃষ্টি করে যারা জনগণের অধিকারের জন্য প্রকৃত লড়াইকারী তাদের হত্যা-অপহরণের ঘটনা ঘটিয়ে ভয়াল পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে একটি বিশেষ দল সেনাবাহিনীর সাথে আঁতাত করে পানছড়ি-দিঘীনালায় ইউপিডিএফের সদস্যদের ওপর স্বশস্ত্র আক্রমণ চালিয়ে নতুন করে পাহাড়ে হত্যার রাজনীতি শুরু করেছে। তারা শাসকের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী সমাঝোতার শর্ত লঙ্ঘন করে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত শুরু করতে যতটা আগ্রহী, ঐক্যবদ্ধ লড়াই সংগ্রাম পরিচালনার ক্ষেত্রে ততটা অনাগ্রহী। পাবর্ত্য চট্টগ্রামের ছাত্রসমাজকে সম্মিলিতভাবে এসব অপশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে।


বক্তারা ছাত্রসমাজকে লড়াই সংগ্রামে অবতীর্ণ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, একটা সমাজ-জাতির মূল শক্তি হচ্ছে তার ছাত্র সমাজ। তাদেরকেই ভবিষ্যৎ কান্ডারি হিসেবে চালকের আসন গ্রহণ করতে হবে। অতীতের বিভিন্ন দেশের লড়াইগুলো পর্যবেক্ষণ করলে আমরা ছাত্রসমাজের গৌরবময় ভূমিকাগুলো দেখতে পাই। কাজেই পার্বত্য চট্টগ্রামের চলমান লড়াই-সংগ্রামে ছাত্রসমাজ বসে থাকতে পারে না। তাদের সামনের কাতারে এসে নেতৃত্বের ভার গ্রহণ করতে হবে। কারা প্রকৃত লড়াইকারী, আর কারা লড়াইয়ের নামে ভাঁওতাবাজি করছে তাদের চিহ্নিত করতে হবে। যারা ভন্ডামী করে লড়াইকে বাধাগ্রস্ত করছে তাদের দাতভাঙ্গা জবাব ছাত্র সমাজকেই দিতে হবে


সভার শেষে সবার সম্মতিক্রমে বাবলু চাকমাকে আহ্বায়ক রুদ্র তালুকদারকে সদস্য সচিব করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য প্রচার সম্পাদক রিপন জ্যোতি চাকমা

 

সারা দেশ |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions