সোমবার | ২২ জুলাই, ২০২৪
বান্দরবানের

লামায় ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ৫ বছরের শিশুকে কুপিয়ে হত্যা, অভিযুক্ত আটক

প্রকাশঃ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ০৪:৩৫:৩১ | আপডেটঃ ২২ জুলাই, ২০২৪ ০৬:৪১:২৫  |  ৭৪৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানের লামা উপজেলায় সাদিয়া মনি নামে (৫) বছরের এক শিশুকে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগ ওঠেছে প্রতিবেশি কিশোর মো. হেলাল (১৩) এর বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের দুর্গম বাশঁখাইল্যা ঝিরি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশু বাশঁখাইল্যাঝিরি গ্রামের রোহিঙ্গা নাগরিক মো. ইদ্রিসের মেয়ে, খুনের দায়ে আটক অপর রোহিঙ্গা কিশোর মো. হেলাল একই গ্রামের নবী হোসেনের ছেলে।
নিহতের বাবা ইদ্রিস ও মা আজিদা বেগম চিৎকার করে কান্না করতে করতে বলেন, সকালে ঘুম থেকে উঠে মেয়েটি হেলালের (অভিযুক্ত শিশু) বোনের সাথে উঠানে খেলছিল। কিছুক্ষণ পরে মেয়েকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। এদিক ওদিক খুঁজে না পেয়ে বাড়ির পাশের পাহাড়ের দিকে যাচ্ছিলাম, তখন দেখি হেলাল দা হাতে পাহাড় থেকে নেমে আসছে। আমি সামনে গিয়ে দেখি জঙ্গলের ভিতরে আমার মেয়েকে কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে রেখেছে। আমার পাশাপাশি ঘরে থাকি। নবী হোসেনের পরিবারের সাথে আমাদের কোন বিরোধ নাই, আমি আমার অবুঝ শিশু হত্যার বিচার চাই।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনাস্থলের পাশ থেকে হেলালকে আটক করা হয়, উদ্ধার হয় রক্তাক্ত একটি দা, যা হেলালদের পরিবারের। পরে সবাই হেলালকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

বান্দরবান লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাইমুল হক জানান, পাঁচ বছরের শিশু নিহত সাদিয়া মনিকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে কিশোর হেলালকে পুলিশ আটক করেছে। নিহতের শরীরে ৬/৭টি দায়ের কোপের চিহ্ন রয়েছে, গলার সামনে ও পিছনে কোপানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, শিশুটির লাশের সুরতহাল করা হয়েছে, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে, আর পুলিশ এই বিষয়ে কাজ করছে।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions