বৃহস্পতিবার | ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯

লংগদুতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন দীপংকর তালুকদার এমপি

প্রকাশঃ ০৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০৪:৪৫:২৯ | আপডেটঃ ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০২:৪১:১৩  |  ৫৯৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটির লংগদু মাইনীমুখ বাজারের ঢাকাইয়া টিলায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৬২  পরিবারদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন রাঙামাটির সংসদ সদস্য  দীপংকর তালুকদার । আজ রোববার সকালে তিনি অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত মাইনীমুখের ঢাকাইয়াটিলা পরিদর্শন করেন ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

মাইনীমুখ ইউপি সন্মুখে আয়োজিত ত্রাণ সামগ্রী বিতরণী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রবীর কুমার রায় এর সভাপতিত্বে  অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের  সহ সভাপতি ও আঞ্চলিক পরিষদের সদ্স্য হাজি কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, সাংগঠনিক  সম্পাদক মোঃ জমির উদ্দিন, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, জেলা পরিষদ সদস্য ত্রিদিব কান্তি দাশ,লংগদুউপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল বারেক সরকার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ঝান্টু, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মোহাম্মদ নুর (প্রমুখ)।

ত্রান বিতরনকালে দীপংকর তালুকদার বলেন, অগ্নিকান্ডে যে পরিমান ক্ষতি হয়েছে তা কখনও পুরণ করা যাবে না। তবুও আমরা চেষ্টা করছি যাতে ক্ষতিগ্রস্তরা একটু ঘুরে দাড়াতে পারে।   সম্প্রতি ভয়াবহ এক অগ্নিকান্ডে রাঙামাটির লংগদু মাইনীমুখ বাজার ঢাকাইয়াটিলায় ১৬২  পরিবার  ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
এ দিকে  দীপংকর তালুকদার এমপি উপজেলার মাইনীমুখ বাজারস্থ শ্রী শ্রী হরি মন্দির,  জালিয়াপাড়া শ্রী শ্রী শিবমন্দির, তিনটিলা রাঁধা স্বেবাশ্রম মন্দিরে সনাতনী ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় উৎসব দূর্গাপুজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন।    
 
এসময় তিনি বলেন, দর্ম যার যার উৎসব সবার, পার্বত্য এলাকার যে কোন উৎসবই পাহাড়ী বাঙালীর মিলন মেলায় পরিণত হয়।
তিনি আরো বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনা মানুষের জানমাল নিরাপত্তাসহ যার যার ধর্মীয় আনুষ্টানিকতা পালন করতে পারে তার জন্য কাজ করে চলেছেন।

পরে তিনি লংগদু মডেল  কলেজ গেইট থেকে জালিয়াপাড়া পর্যন্ত রাস্তা নির্মান করে দেয়ার ঘোষনা দেন।
                                                                          
 
রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions