সোমবার | ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

রাঙামাটি চট্টগ্রাম সড়কের একাংশে ভাঙ্গন, যে কান সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যেতে পারে

প্রকাশঃ ১০ জুলাই, ২০১৯ ০৫:৪৯:৫৬ | আপডেটঃ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:০৩:৫৯  |  ২২২২
সিএইচটি টুডে ডট  কম, রাঙামাটি। টানা বৃষ্টিতে রাঙামাটির ঘাগড়ার কলাবাগান এলাকায় রাঙামাটি-চট্টগ্রাম মহাসড়ক পাশে একটি বড় অংশ ধসে পড়ছে। ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে।

এটি রক্ষা করা না গেলে রাঙামাটির সাথে চট্টগ্রামের যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে। এটি রক্ষার জন্য কাজ করছে সড়ক বিভাগের কর্মীরা। এটি ভাঙনের ফলে পার্শবর্তী দুটি বাড়ি বিলীন হওয়ার পথে।

বুধবার সকালে গিয়ে দেখা যায় বৃষ্টি উপেক্ষা করে জীবনের ঝুকি নিয়ে হলেও সড়কটি রক্ষার চেষ্টা করছেন সড়ক বিভাগের কর্মীরা। ধসে পড়ার অংশে ত্রিপল দিয়ে ঢেকে বৃষ্টি মোকাবেলা করা হচ্ছে।  জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা না নিলে চট্টগ্রামের সাথে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে।

ঝুঁকির মুখে হালকা ও ভারী যানবাহান চলাচল করলেও বৃষ্টির কারণে রাস্তার অংশটি যে কোন সময় বিলিন হয়ে যেতে পারে। বন্ধ হয়ে যেতে পারে রাঙামাটি-চট্টগ্রামের সরাসরি সড়ক যোগাযোগ।
কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শতরূপা তালুকদার জানান, প্রবল পাহাড়ী ঢলের তোড়ে মহাসড়কটি ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে। ভাঙ্গনের তীব্রতা এতো বেশী যে সড়কটি যে কোন মুহুর্তে বিলিন হয়ে যেতে পারে। তিনি জানান, সড়কটির ভাঙ্গনের অবস্থা এতোই নাজুক যে, বৃষ্টি বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত এই সড়কের ভাঙ্গন প্রতিরোধে কোন উপায় নেই।
রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ সড়কের ভাঙ্গনে বিষয়ে রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগকে জানিয়ে দ্রুত এই ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করেন।


এদিকে ভারি বর্ষণ না হলেও রাঙামাটিতে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে, জেলা প্রশাসন ঝুকিপুর্ণ লোকজনকে নিরাপদ স্থানে কাজ করছে। তবে বেশীর ভাগ মানুষই রাতে আশ্রয় কেন্দ্রে আসেন আবার ভোরে ঝুকিপুর্ণ নিজ বাড়িতে চলে যান। আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নেয়া লোকজনের মাঝে রাতে জেলা প্রশাসন থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।

২০১৭ সালের ১৩ জুন রাঙামাটিতে ভয়াবহ পাহাড় ধ্বসের ফলে এই সড়কের ভাঙ্গন দেখা দেয়। সড়ক ও জনপথ বিভাগ শুধুমাত্র কয়েকটি বল্লী দিয়ে রাস্তার ভাঙ্গন রোধের চেষ্টা করলেও এই সড়কের সংস্কারের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। তারই পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩ দিনের ভারী বর্ষণে আবারো রাঙামাটি চট্টগ্রাম সড়ক ধ্বসে পড়ার উপক্রম হয়েছে।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions