শুক্রবার | ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
নির্বাচন স্থগিতের দাবি

কাউখালী বিআরডিবি নির্বাচনে ফরম নিতে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ ক্ষমতাসীন দলের নেতার বিরুদ্ধে

প্রকাশঃ ০৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০৪:৩৩:৪৬ | আপডেটঃ ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:১৩:৩৮  |  ৫৮৩
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি জেলার কাউখালী উপজেলায় সমবায় পরিচালিত বিআরডিবি এর নির্বাচনে ফরম নিতে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও প্রার্থীর বিরুদ্ধে। বিআরডিবি সমিতির বর্তমান ও বিএনপি নেতা আবুল মনছুর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে ফরম কিনতে গেলে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী ও সাবেক বিআরডিবি সমিতি সভাপতি বেলাল উদ্দিন বিআরডিবি কার্যালয়ে অর্ধশতাধিক নেতা কর্মী নিয়ে অবস্থান নিয়ে ফরম নিতে দেয়নি। বর্তমান সভাপতি আবুল মনছুর নির্বাচন স্থগিতের দাবিতে নির্বাচন কমিশন ও জেলা প্রশাসকের কাছে পৃথক আবেদন করেন।
আবেদনে অভিযোগ করা হয়, কাউখালী বিআরডিবি সভাপতি পদে গতকাল রোববার ছিল মনোনয়ন পত্র ক্রয়ের শেষ এবং ছিল জমা দেয়ার শেষ তারিখ। গতকাল ফরম কিনতে ব্যাংকে মনোনয়ন পত্রের ৩ হাজার টাকা জমা দিয়ে নির্বাচন কমিশন কার্যালয় গেলে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মাধ্যমে  আমাকে বাধাঁ প্রদান করলে আমি ফরম না কিনে চলে আসতে বাধ্য হই। নানাভাবে নির্বাচন কমিশনসহ প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে পাই নাই, উপরন্তু নির্বাচন হওয়ার আগে সন্ত্রাসী ষ্টাইলে সভাপতির চেয়ারে গিয়ে বসে পড়েন বেলাল উদ্দিন। অথচ বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৫ নভেম্বর। আইন মোতাবেক নির্বাচিত হওয়ার পর নতুন কমিটি পুরাতন কমিটি থেকে দায়িত্ব বুঝে নিবে।
আবুল মনছুর অভিযোগ করে বলেন, সন্ত্রাসী কাঁদায় আমাকে হুমকি দেয়া হচ্ছে, মানা হচ্ছে না নির্বাচনের বিধিমালা। তাই নির্বাচনে সমান সুযোগ দেয়া হোক, না হয় নির্বাচন স্থগিত করে নতুন আহবায়ক কমিটি  গঠন করা হোক।
ক্ষমতাসীন দলের নেতা বেলাল উদ্দিন মুঠো ফোনে জানান, আমার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ দিয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভুয়া বানোয়াট। কাউখালীতে আমার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ কেউ প্রমাণ করতে পারলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব। আবুল মনছুর কেন আমার প্রতিপক্ষ হবে তার সাথে আমার কোন ঝামেলা নাই।

বিষয়টি জানতে কাউখালী সমবায় কর্মকর্তা আশরাফ উদ্দিন মুঠো ফোনে জানান, আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি, নির্বাচনে এপর্যন্ত ৬টি মনোনয়ন পত্র বিক্রি হয়েছে এরমধ্যে সভাপতি পদে একজন নিয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, অফিসের বাইরে কিছু হলে সেটার দায় আমি নিতে পারি না, আমার অফিসের মধ্যে কিছু হলে সেই দায়িত্ব আমার।
কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমনী আক্তার জানান, তারা অভিযোগ পেয়ে বিআরডিবি অফিসে পুলিশ মোতায়েন করেছেন, এরপর আর কোন অভিযোগ আসেনি।
   
 
রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions