মঙ্গলবার | ০৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
রাঙামাটিতে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস উদযাপন

প্রবীনদের যথাযথ সম্মান ও মুল্যায়ন করতে হবে : অংসুইপ্রু চৌধুরী

প্রকাশঃ ০১ অক্টোবর, ২০২২ ০৯:২৯:১৯ | আপডেটঃ ০৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩ ০৫:৫৬:৪৮  |  ৩০২
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী বলেছেন, আজকের তরুণরাই আগামী দিনের প্রবীণ। অন্যদিকে আজকে যারা প্রবীণ তারাই একদিন ছিলেন নবীন। দিন যত যাবে বাংলাদেশে এই তরুণ জনগোষ্ঠী বিপুল সংখ্যায় প্রবীণের কাতারে নাম লেখাবে। বলা হচ্ছে ২০২৯ সাল থেকে বাংলাদেশের একটি বিশাল সংখ্যক মানুষ প্রবীণের খাতায় নাম লেখাবে। এই যে বিপুল পরিমান মানুষ শারিরীক ও মানসিক সমস্যা নিয়ে বাস করবে তাদের পাশে দাঁড়াবার জন্য পর্যাপ্ত সচেতনতা তৈরির কাজ এখন থেকেই শুরু করতে হবে। শপথ নিতে হবে প্রবীণ বান্ধব বাংলাদেশ গড়ার। নবীনরা যদি প্রবীনদের যথাযথ সম্মান ও মূল্যায়ন করে তাহলে আগামী দিনে বর্তমান নবীনরা যখন প্রবীন হবে তখন তারাও মুল্যায়িত হবেন।  

রাঙামাটি জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের আয়োজনে ৩২তম প্রবীণ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ছিলো “ পরিবর্তিত বিশ্বে প্রবীণ ব্যক্তির সহনশীলতা”। আলোচনা সভা শুরুর আগে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালিটি বিভিন্ন স্থান ঘুরে জেলা পরিষদ গিয়ে শেষ হয় এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আরো বলেন, প্রবীণদেরকে সমাজে যথাযথ মূল্যায়ন করতে হবে। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে, প্রবীণের যুক্তি আর নবীনের শক্তি, এই দুয়ে দেশের মুক্তি।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে বয়স্কভাতা,বিধবা ভাতা,মুক্তিযোদ্ধা ভাতাসহ নানা ধরণের কল্যাণকর সো কার্যক্রম চালু করেছে আর তার ফলে প্রবীন ব্যক্তিরা সমাজে সুন্দরভাবে বসবাস করতে পারছে। এসময় তিনি নবীনদের পাশাপাশি সমাজের প্রবীণ ব্যক্তিদের সুরক্ষায় সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

জেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে এতে জেলা পরিষদের সদস্য প্রবর্তক চাকমা, অবসরপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা কাজল কান্তি চাকমা, পবন চাকমা, অবসরপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন সুপ্রিয় বড়ুয়াসহ অবসরপ্রাপ্ত অনেক কর্মকর্তা, শিক্ষক শিক্ষিকাসহ বিভিন্নজন উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, আজকে যারা নবীন, তারাই আগামী দিনের প্রবীণ। আজো আমাদের দেশে প্রবীণ ব্যক্তিদের প্রাধান্য দিয়ে কোন বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয় না। প্রবীণ বান্ধব রেস্টুরেন্ট নেই, বাসে, ট্রেনে, প্লেনে কোথাও তাদের জন্য বিশেষ লাইন নেই, হুইল চেয়ার নিয়ে সব জায়গায় যাওয়ার র‌্যাম্প নেই। এমন হাজারো সমস্যার সম্মুখীন হোন আমাদেরই আপনজনেরা যারা প্রবীণ।   


রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions