বৃহস্পতিবার | ১৮ এপ্রিল, ২০২৪

জীবতলী থেকে জাতীয় সংসদে যাচ্ছেন জ্বরতী

প্রকাশঃ ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ ০৪:৩৯:১৫ | আপডেটঃ ১৮ এপ্রিল, ২০২৪ ০৩:৩১:৩৬  |  ৬৭৪
বিশেষ প্রতিনিধি, সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। দ্বাদশ জাতীয় সংসদের ৪৮টি সংরক্ষিত মহিলা আসনে দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র নির্বাচন কমিশনে (ইসি) জমা দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এই তালিকায় তিন পার্বত্য জেলা থেকে রাঙামাটি আসনে জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যা রয়েছেন। জ¦রতী তঞ্চঙ্গ্যা রাঙামাটি সদর উপজেলার ১ নম্বর জীবতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। তার স্বামী তরুন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা জীবতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। জ্বরতীর শুশুর ও তরুন কান্তির পিতা হেডম্যান যতীন তঞ্চঙ্গ্যা জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য।

এবার তিন পার্বত্য জেলা থেকে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেত্রীরা সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি মনোনয়নের জন্য আলোচনায় থাকলেও অনেকটা জনসাধারণের আলোচনার বাহিরে থেকেও মনোনয়ন বোর্ডের চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পেয়েছে জ¦রতী তঞ্চঙ্গ্যার নাম। এটিকে চমক হিসাবে দেখছেন জেলার আওয়ামী পরিবারের অনেকেই। দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যেও দেখা দিয়েছে উচ্ছাস।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানাই। তিন পার্বত্য জেলা থেকে যারা এমপি আছেন; উনাদেরকেও ধন্যবাদ জানাই। আমি এমপি হলে সকলের জন্য কাজ করব। জনগণের জন্য কাজ করতে পারলে তবেই হবে আমার সার্থকতা।’

রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর জানিয়েছেন, রাঙামাটি থেকে জীবতলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যাকে মনোনীত করা হয়েছে। তাকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে মনোনয়ন দেওয়ায় আমরা খুবই খুশি হয়েছি। তৃণমূল থেকে একজন আওয়ামী লীগের নেত্রী সংসদে যাচ্ছেন। এরজন্য আমরা দলীয় ও প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যা দলের মনোনয়ন পাওয়ায় সংরক্ষিত মহিলা আসনসহ রাঙামাটি থেকে দুজন সংসদ সদস্য হতে যাচ্ছেন। এ বিষয়ে প্রত্যাশার কথা জানতে চাইলে মুছা মাতব্বর বলেন, ‘জেলা থেকে পাঁচ এমপি হলেও সমস্যা নেই। এখানে (রাঙামাটি) কাজ করার অনেক সুযোগ আছে। যে যার যার মতো জনগণের জন্য কাজ করবেন।’

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর সংসদ সদস্যের শপথ গ্রহণের পরদিন গঠিত নতুন মন্ত্রীসভায়ও। তবে এবারের মন্ত্রী সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন খাগড়াছড়ি আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা; হয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী। রাঙামাটি-বান্দরবান আসন থেকেও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হলেও রাঙামাটির এমপি, সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এবং বান্দরবানের এমপি, সাবেক পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং দ্বাদশের মন্ত্রী সভায় ঠাঁই পাননি।

তবে রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বান্দরবানের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হয়েছেন। জ¦রতী তঞ্চঙ্গ্যাঁর দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় রাঙামাটি আসন থেকে দুজন সংসদ সদস্য হতে যাচ্ছে।

রাঙামাটি জেলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাট্রির সভাপতি মো. আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, আমি রাঙামাটি চেম্বারের দায়িত্ব থাকলেও দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম। জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকসহ বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলাম, আওয়ামী লীগের প্রতি পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে। আমি মনে করি, এবারের নির্বাচনে তিন পার্বত্য জেলা থেকে চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরা জনগোষ্ঠী থেকে তিনজন নির্বাচিত সংসদ সদস্য হয়েছেন। সেখানে তঞ্চঙ্গ্যা জনগোষ্ঠী থেকে একজনকে সংরক্ষিত মহিলা আসনে দলের মনোনয়ন দেওয়া হলো। আমি বলব প্রধানমন্ত্রীর অনুসন্ধানি দৃষ্টি ভুল করেনি। তৃণমূল থেকে বা একটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদিকা হলেও উনার এখন কাজ করার অনেক সুযোগ আছে। আমি বলব রাঙামাটিকে তুলে ধরতে হলে এখানকার পর্যটনশিল্পকে প্রোমোট করতে হবে। পাহাড়ে উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী সহজে বাজারজাতকরণ ও পাহাড়ে চাঁদাবাজি থেকে পরিত্রাণ পেতে বিশেষ গুরুত্ব রাখার প্রয়োজন।

পাহাড়ের রাজনীতি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions