বুধবার | ২৯ জুন, ২০২২

বাঘাইছড়িতে ইউপি সদস্য পদ প্রার্থীকে মারধর ও কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ

প্রকাশঃ ১৪ জানুয়ারী, ২০২২ ১১:৩৭:২৯ | আপডেটঃ ২৩ জুন, ২০২২ ০৮:০৪:৪৭  |  ৫৬৮
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলা সপ্তম দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে জামানতের টাকা জমা দিতে গেলে ব্যাংকের সামনে থেকে এক সদস্য প্রার্থীকে অপহরণ, মারধর ও কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে জেএসএস সংস্কারের বিরুদ্ধে। থানায় অভিযোগ করলেও এটি মামলা হিসাবে না নিয়ে জিডি হিসাবে নিয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, বাঘাইছড়ি  উপজেলার ৩২নং বাঘাইছড়ি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী হিসাবে বিকাশ চাকমা , পিতা প্রেমানন্দ চাকমা ১১জানুয়ারী মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটায় বাঘাইছড়ি উপজেলা সোনালী ব্যাংক শাখায় নির্বাচনের জামানতের টাকা জমা দিতে যান, সে সময় জেএসএস সংস্কারপন্থী কমান্ডার এলিন চাকমা ও বিনয় চাকমার নেতৃত্বে ৫/৬ জনের অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তি তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ব্যাপক মারধরের পর জামানতের টাকা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি ছিনিয়ে এবং মোবাইলে আত্বীয় স্বজনকে ডেকে তাদের জিম্মায় ছেড়ে দেয়।

অভিযোগকারি আরো জানায়, গত ১২ জানুয়ারি বাঘাইছড়ি থানায় এবিষয়ে ৬ নামে এজাহার করতে গেলে পুলিশ গড়িমসি শুরু করে। বাঘাইছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুদর্শন চাকমাকে ১ নম্বর আসামী জ্ঞান জীব চাকমাকে ৪ নম্বর আসামী করে মোট ৬জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও পুলিশ ১ নম্বর এবং ৪ নম্বর আসামীকে বাদ দিয়ে বাকি ৪জনের নামে অভিযোগটি জিডি হিসাবে গ্রহণ করে। অন্যরা হলো এলিন চাকমা (৩০), বিনয়  চাকমা (৩৯), রুবেল চাকমা (৩৯) এবং জগদীশ চাকমা (৩৫)।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে বাঘাইছড়ি উপজেলা জেএসএস এমএন লারমার সভাপতি জ্ঞান জীব চাকমাকে ফোন দিলে তার নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, আমরা একটা অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions