শনিবার | ২১ মে, ২০২২
বান্দরবানের

আলীকদমের ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১২৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশঃ ১২ মে, ২০২২ ০৪:৩৪:১৮ | আপডেটঃ ২১ মে, ২০২২ ০৬:১৭:৫৮  |  ২২২
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। ২০২১ সালের ২৮শে নভেম্বর বান্দরবানের আলীকদমে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে ১২৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ১নম্বর আলীকদম সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আনোয়ার জিহাদ।  বৃহস্পতিবার (১২মে) বাদী পক্ষের আইনজীবী মো: খলিল বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
 
মামলার অভিযুক্তরা হলেন, ১নংআলীকদম সদর ইউনিয়নের বর্তমান  চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন,  উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং অফিসার আতিকুল ইসলাম চৌধুরী, ৭নং ওয়ার্ডের প্রিজাইডিং অফিসার মোঃ জসীম উদ্দীন, ৭নং ওয়ার্ডের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ওবাইদুল হাকিম, ৭নংওয়ার্ডের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার আশিকুল ইসলাম, ৭নং ওয়ার্ডের পোলিং অফিসার হুমাইরা জান্নাতলিমা, ৭নং ওয়ার্ডের পোলিং অফিসার সামহ্রী মারমা, ৭নং ওয়ার্ডের পোলিং অফিসার মোঃ আবু জাফর, ৮নং ওয়ার্ডের প্রিজাইডিং অফিসার হুমায়ুন কবির, ৮নংওয়ার্ডের সহকারী প্রিজাইডিংঅফিসার আক্তার উদ্দিন, ৯নংওয়ার্ডের প্রিজাইডিং অফিসার রামেল পাল, ৯নংওয়ার্ডের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার মোহাম্মদ হোছেন, ৫নং ওয়ার্ডের প্রিজাইডিং অফিসার গিয়াস উদ্দীন, ৫নংওয়ার্ডের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার চানু মারমাসহ আলীকদমের ১নংসদর ইউনিয়নে ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়াডের্ নির্বাচনের সময় দায়িত্বরত ১২৭ জনপ্রিজাইডিং ও সহকারী প্রিজাইডিংঅফিসার।

জানা যায়, গত ২০২১ সালের ২৮নভেম্বর  বান্দরবানের আলীকদমের চারটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিতহয়। অভিযোগকারী নির্বাচনে ১নং আলীকদম সদর ইউনিয়ন পরিষদে মোটর সাইকেল প্রতীক নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নেন।

নির্বাচনের দিন শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হলে ও বিবাদিরা ভোট গননার সময় প্রচুর কারচুপি করারঅভিযোগ উঠে। নির্বাচনী এলাকার দুর্গম ৮ ও ৯ নংওয়ার্ডেও অধিকভোট কাস্টিং দেখিয়ে প্রতিপক্ষের বেশি ভোট দেখায়। এসময় বাদির নিযুক্ত এজেন্টদের কাছ থেকে ফরম-ঞ তে জোর করে স্বাক্ষর নিয়ে কোন কেন্দ্র্রে রেজাল্ট শিট সরবরাহ না করে ৮নং ওয়ার্ডে ৮৯.৮৮ % ও ৯নংওয়ার্ডে  ৯৯.১৯% ভোট কাস্টিং দেখায়।
এনিয়ে বিভিন্ন দফতরে অনিয়মের প্রমান দিয়ে ভোট পুন: গণনার দাবি ও দোষীদের বিচারের    দাবি জানিয়েও কোন সুরাহা না পাওয়ায় নির্বাচন ট্রাইব্যুনালে এ অভিযোগ করেন মো: আনোয়ার জিহাদ।


এ বিষয়ে মো:আনোয়ার জিহাদ জানান,২০২১সালের ২৮শে নভেম্বর বান্দরবানের আলীকদমে  অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোট কার চুপির প্রমান স্বাপেক্ষে  নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেছিলাম। নির্বাচন কমিশন অভিযোগ আমলে নিয়ে গেজেট স্থগিত করে এবং ৪টি ইউপির মধ্য ৩টি তে গেজেট প্রকাশ হলেও আলীকদম সদর ইউপির গেজেট প্রকাশ করেনি,এরপর নিবার্চন কমিশনের পক্ষে একটি তদন্ত কমিশন গঠন করে। তদন্ত টিম আমার অভিযোগগুলোর প্রমান ও পায়।তারপর ও তদন্ত প্রতিবেদন কেন যে আমার পক্ষে আসেনি তা আমি পরিষ্কার না। তারপরও কি অদৃশ্য করণে নাছির উদ্দিনের নামে কাকতালীয় ভাবে গেজেট প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন। যেহেতু আমি নির্বাচন কমিশন থেকে কোন প্রতিকারপাইনি,সেহেতু আমি ন্যায়বিচারের প্রত্যাশায় আমি নির্বাচন ট্রাইব্যুনালের শরণাপন্ন হয়ে একটি মামলা দায়ের করছি।

এদিকে বান্দরবান জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন,নির্বাচনের জয় বা পরাজয় নিয়ে পরাজিত প্রার্থী গেজেট প্রকাশ হওয়ার পর নির্বাচন ট্রাইব্যুনালে মামলা করতে পারে। মামলা দায়ের হলে, যাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে তারা আইনীভাবে তা মোকাবেলা করবেন।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions