মঙ্গলবার | ১৬ অক্টোবর, ২০১৮

সংস্কৃতিহীন জাতির পরিচয় থাকতে পারে না : বৃষ কেতু চকমা

প্রকাশঃ ২০ জুলাই, ২০১৮ ১০:১৭:৫৩ | আপডেটঃ ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:০৯:০৫  |  ২৮৬
শাহ আলম, সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। যে জাতির সংস্কৃতি নেই, সে জাতির পরিচয় নেই উল্লেখ করে, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেছেন, সকল জাতির মানুষ তার নিজ নিজ ভাষায় কথা বলবে। যেকোন জাতির ভাষা ও তার সংস্কৃতিই হলো তার জাতির পরিচয়। এগুলো ছাড়া একটি জাতির পরিচয় হতে পারে না।

“সৃজনে উন্নয়নে বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় রাঙামাটিতে শুরু হওয়া দু’দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আজ শুক্রবার বিকালে  সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও জেলা প্রশাসনের সহযোহিতায় রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় তিনি আরো বলেন, দেশের তরুণ সমাজসহ সর্বস্তরের জনগণের মধ্যে সাংস্কৃতিক জাগরণ সৃষ্টি তথা দেশজ সাংস্কৃতি ধারণ, লালন ও সম্প্রসারণের জন্য সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে দেশের ৬৪ জেলায় একযোগে আজ থেকে দুদিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

রাঙামটি জেলা প্রশাসক  একেএম মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবীর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম শফি কামালসহ অন্যন্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, সাংস্কৃতিক উৎসব সফলভাবে আয়োজনের মাধ্যমে দেশব্যাপী সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড আরও বিকশিত হবে এবং কিশোর-তরুণ সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষ বাংলাদেশের নিজস্ব সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট হবে।

দু’দিনব্যাপী এই সাংস্কৃতিক উৎসবে প্রতিদিন বিকাল চারটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত জেলা শিল্পকলা একাডেমিসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন সঙ্গীত, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি ও নাটক পরিবেশন করবে। আগামীকাল শনিবার রাত নয়টায় অনুষ্ঠিত হবে উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠান।

এছাড়াও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়ে সরকারের জনকল্যাণমূলক ও উন্নয়ন কর্মকান্ডের উপর নির্মিত বিভিন্ন ভিডিও তথ্যচিত্র প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রদর্শন করা হয়।

আলোচনা সভা শেষে অতিথিবৃন্দরা সাংস্কৃতিক সংগঠন সঙ্গীত, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি ও নাটক পরিবেশন উপভোগ করেন।

এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions