শুক্রবার | ২৭ নভেম্বর, ২০২০

পার্বত্য এলাকায় কাজু বাদাম চাষ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে নার্সারী স্থাপন

প্রকাশঃ ১৯ অক্টোবর, ২০২০ ০৮:৫১:৩৬ | আপডেটঃ ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ০৭:০৬:৫৯  |  ২৬৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান।  পার্বত্য জেলা বান্দরবানে কাজু বাদাম চাষ সম্প্রসারণের লক্ষে এই  প্রথম  একটি নার্সারীর যাত্রা শুরু হয়েছে।

১৯ অক্টোবর (সোমবার) বিকালে বান্দরবানের সুয়ালক ইউনিয়নের লম্বারাস্তা এলাকায় বেসরকারি একটি প্রতিষ্টানের উদ্যোগে কাজু বাদামের চারা উৎপাদন লক্ষে যাত্রা শুরু করে এল এ এগ্রো লিমিটেড।

কাজু বাদামের নার্সারী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বছরব্যাপী ফল উৎপাদনের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড.মোঃ মেহেদী মাসুদ।

এসময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব সোনামনি চাকমা,সিনিয়র সহকারী সচিব সুজয় চৌধুরী,বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর, হটিকালচার সেন্টারের উপ-পরিচালক মো.মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ ওমর ফারুক, বান্দরবান প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনু, সাধারণ সম্পাদক মিনারুল হক, এল এ এগ্রো লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ইফতেখার সেলিম অগ্নি, এল এ এগ্রো লিমিেিটড এর বান্দরবান জেলা তত্বাবধায়ক রতন দে শাওনসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড.মোঃ মেহেদী মাসুদ জানান,পার্বত্য জেলা বান্দরবানে এই কাজু বাদামের নার্সারী স্থাপনের ফলে এই জেলায় কাজু বাদাম চাষ সম্প্রসারন হবে। তিনি আরো বলেন,পার্বত্য জেলায় কাজু বাদাম চাষ বৃদ্ধি করার লক্ষে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে আর এই চাষ সম্প্রসারণের জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন অব্যাহত রেখেছে।

এল এ এগ্রো লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ইফতেখার সেলিম অগ্নি বলেন, বান্দরবান এল এ এগ্রো লিমিটেড যাত্রা শুরুর ফলে জেলায় উচ্চ ফলনশীল কাজু বাদামের চারা উৎপাদন শুরু হবে। এই চারা আমরা চার মাস প্যাকেটজাত করার পর পরিচর্যা করে বড় করবো এবং ৪মাস পর বিক্রি করার কার্যক্রম শুরু করবো। তিনি আরো বলেন,বান্দরবানের সুয়ালক ইউনিয়নের লম্বা রাস্তা এলাকায় ২ একর জমিতে আমাদের এই কাজু বাদামের নার্সারী স্থাপন করা হয়েছে এবং এই নার্সারীতে প্রায় শতাধিক শ্রমিকের কর্মসংস্থান হয়েছে যারা কাজু বাদাম চারা উৎপাদনে কাজ করবে।

এল এ এগ্রো লিমিেিটড এর বান্দরবান জেলা তত্বাবধায়ক রতন দে শাওন বলেন,আমরা কম্বোডিয়া ও ভিয়েতনাম থেকে উন্নতজাতের ৬ লক্ষ কাজু বাদামের বীজ এনেছি এবং এই বীজ আমরা প্যাকেটজাত করে চারা উৎপাদন করবো। রতন দে শাওন আরো বলেন,কাজু বাদামের এই নার্সারী বান্দরবানে যাত্রা শুরুর মধ্য দিয়ে পার্বত্য জেলা বান্দরবানসহ তিন পার্বত্য জেলায় এখন থেকে কাজু বাদাম চাষে আগ্রহ বাড়বে এবং চাষীরা এই বাদাম চাষ করে লাভবান হবে।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions