বুধবার | ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
রাঙামাটিতে করোনার পর আদালতের প্রথম রায়

মা-ছেলেকে মারধরের মামলায় আসামীর দেড় বছরের কারাদন্ড

প্রকাশঃ ১০ অগাস্ট, ২০২০ ১১:২৪:০২ | আপডেটঃ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১০:১২:৫৭  |  ৫৭১
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি শহরের কাঁঠালতলীর বাসিন্দা মুন্নী বেগম (৫০) ও তার ছেলে হুমায়ুন কবিরকে মারধর ও ছুরিকাঘাতের মামলায় অবশেষে ফাসলেন আসামী ফয়সাল খান। মামলা প্রত্যাহারে ভয়ভীতি ও নানান চেষ্টা করেও শেষ রক্ষা হয়নি তার। দীর্ঘ দশ বছর পর তাকে দেড় বৎসর সশ্রম কারাদন্ড ও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরো ০২ (দুই) মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।। দ্রুত রায় কার্যকর করতে ইস্যু করা হয়েছে গ্রেফতারী পরোয়ানা ।

সোমবার(১০ আগস্ট) রাঙামাটি চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাব, এ.এন.এম. মোরশেদ খান এর আদালত এই মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে আসামী ফয়সাল খানকে পেনাল কোড এর ৩২৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে সাজা প্রদান করেন। করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আদালতের এটিই কোন মামলার প্রথম রায় দেয়া হলো। এ ঘটনায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন মুন্নি বেগমের মেয়ে মামলার বাদি আনোয়ারা বেগম।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী মোঃ মনজুরুল ইসলাম জানান, ২০১০ সালের ০৫ মার্চ তারিখে কোতয়ালী থানায় আনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে আসামী ফয়সাল খান, হারুন খান ও হানিফ খান এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। তদন্ত করে ৪ জনকে অভিযুক্ত করে পুলিশ আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। ২০১০ সালে ৩১ মে চার্জশীট দাখিলের পর ২০১১ সালের ৫ জানুয়ারী আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু করেন।

তবে সোমবার মামলার রায়ে অপর দুই আসামী হারুন খান ও হানিফ খানকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন আদালত।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions