শুক্রবার | ১৪ অগাস্ট, ২০২০

কভোড ১৯ মোকাবেল যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস কর্তৃক বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগকে সরঞ্জাম হস্তান্তর

প্রকাশঃ ২১ জুলাই, ২০২০ ০৩:০১:৫৯ | আপডেটঃ ১৪ অগাস্ট, ২০২০ ০৪:৪৪:৫৬  |  ২৪৭

সিএইচটি টুডে ডট কম, ঢাকা, জুলাই ২১, ২০২০বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার এবং যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ডের দূতাবাস প্রতিনিধিরা বাংলাদেশের কোভিড-১৯ মোকাবেলায় অব্যাহত সহায়তার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে (এএফডি) বিতরণের জন্যে অত্যাবশ্যকীয় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোঃ মাহফুজুর রহমানের কাছে হস্তান্তর করেন। এটি যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে পিপিই সহায়তা দেয়ার পরিকল্পিত কার্যক্রমের ষষ্ঠতম অনুদান। এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র স্টেট ডিপার্টমেন্ট, ইউএসএআইডি, ডিফেন্স এন্ড এগ্রিকালচার ডিপার্টমেন্ট এবং সেন্টারস অফ ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন এর মাধ্যমে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে ৫৬.৫ মিলিয়ন ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে।

 

সোমবার (জুলাই ২০, ২০২০) ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস যে অনুদান সরঞ্জামগুলো হস্তান্তর করেছে তার মধ্যে রয়েছে ১,২০০টি কেএন৯৫ সার্জিক্যাল মাস্ক, ধুয়ে পুনরায় ব্যবহারযোগ্য ৮,০০০ ফেস মাস্ক, ২০০-মিলিলিটারের ৩,০০০ বোতল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ৯,০০০ জোড়া সার্জিক্যাল গ্লাভস, ৬০০ পুনরায় ব্যবহারযোগ্য হ্যাজম্যাট স্যুট, ১০০ ডিসপোজেবল হ্যাজম্যাট স্যুট, এবং ৫০০ মুখমন্ডল ঢাকার শিল্ড, সবগুলো উপকরণ যুক্তরাষ্ট্র স্থানীয়ভাবে বাংলাদেশী কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে কিনেছে।  বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ (এএফডি)-এর সদস্যরা বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় প্রতিরোধ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে প্রথম সারির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এএফডি-র সদস্যরা কোভিড-১৯ মোকাবেলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। তারা কোভিড-১৯ আক্রান্ত জনসাধারণকে সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেয়াসহ সারাদেশে জনগণ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে সহায়তা করছে। যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের দেয়া এই পিপিই অনুদান সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের চিহ্নিত ফার্স্ট রেসপন্ডারদের (প্রথম সাড়াদানকারী) নিজেদেরকে সুরক্ষিত রেখে বাংলাদেশের জনগণকে নিরাপদ ও নিরাপত্তা সেবা দেয়া নিশ্চিত করবে। 

 

কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার এই মহামারি মোকাবেলায় স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও ইউএসএআইডি-র মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী জরুরি স্বাস্থ্য, মানবিক, অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন সহায়তা কর্মকাণ্ডে সরকার, আন্তর্জাতিক সংস্থা ও এনজিওদের সহায়তা করতে ১.৫ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ঢাকার যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস বাংলাদেশের সংস্থাগুলোকে সহায়তা করছে, যা বিগত ২০ বছরে দেয়া ১ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি স্বাস্থ্য সহায়তার সাথে যুক্ত হচ্ছে। এই অর্থ সহায়তা বাংলাদেশের সকল মানুষের জন্য মানসম্পন্ন জীবনরক্ষাকারী স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘমেয়াদী অঙ্গীকারের বিষয়টিই জোড়ালো ভাবে তুলে ধরে।

 

ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস স্থানীয় পর্যায়ে এলাকাবাসীর মধ্যে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়া রোধে নিরলসভাবে কাজ করে চলা বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগকে এই অত্যাবশ্যকীয় পিপিই প্রদান করতে পেরে গর্বিত। এই অনুদান সাম্প্রতিক কালে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস কর্তৃক দেয়া বাংলাদেশ সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ কাস্টমস বিভাগের কর্মকর্তা, কমলাপুর রেলওয়ে জেনারেল হাসপাতাল, এবং বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সকে দেয়া অনুদানের অতিরিক্ত। বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ পুলিশ ও অন্যান্য ফার্স্ট রেসপন্ডারদের সহায়তা করার লক্ষ্যে কাজ করছে।

 

এছাড়াও তারা স্বাস্থ্যসেবাদানকারী কর্মী, কাস্টমস কর্মকর্তা, মুদি ও ঔষধের দোকানে কর্মরত কর্মী, সাংবাদিক, এবং স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলোর সাথে একত্রিতভাবে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে প্রতিদিন অসাধারণভাবে মানুষের সেবা দিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট এই মহামারী মোকাবেলায় বাংলাদেশের পাশে থেকে কাজ করতে এবং দুই দেশের মধ্যকার গভীর সম্পর্ককে আরো জোরদার করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ।   

 


প্রেসবিজ্ঞপ্তি

জাতীয় |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions