শনিবার | ০৪ জুলাই, ২০২০

রাঙামাটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭০, চিকিৎসক নার্স ও পুলিশসহ সুস্থ্য হলেন ৩২ জন

প্রকাশঃ ০৫ জুন, ২০২০ ১০:৩৭:১১ | আপডেটঃ ০৩ জুলাই, ২০২০ ১০:২১:১৮  |  ৪৪৫
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭০জন হলেও সুস্থ্য হয়েছেন ৩২জন। এদের মধ্যে সাধারন মানুষ, রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও পুলিশ রয়েছে।

সুস্থ্য হওয়াদের মধ্যে শুক্রবার বিকালে স্বাস্থ্যবিভাগের  ৪জন ও পুলিশের ২জনকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সাকের্ল) তাপস রঞ্জন ঘোষ ও রাঙামাটি সিভিল সার্জন অফিসের করোনা বিষয়ক দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডা: মোস্তফা কামাল।

এসময় ডা: মোস্তফা কামাল জানান, আক্রান্ত হওয়ার পর তাদের চম্পকনগর আঞ্চলিক জনসংখ্যা প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউটের আইসোলশনে রাখা হয়। এসময় হাসপাতাল থেকে তাদের খাবার সরবরাহসহ সিভিল সার্জন, আরওএমও দেখভাল করেন। আক্রান্তদের প্রথম রিপোর্ট পজেটিভ হলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় তাদের করোনা মুক্ত ঘোষণা করা হয় এবং তারা আজ বাড়ি ঘরে ফিরে যান। তিনি আরো জানান, আক্রান্তরা প্লাজমা সেল করতে রাজি হয়েছে, আমরা যখন প্রয়োজন তাদের কাছ থেকে প্লাজমা সংগ্রহ করতে পারব।

রাঙামাটির সদরেরঅতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাকের্ল)  তাপস রঞ্জন ঘোষ জানান, কোভিড ১৯ মোকাবেলা করতে গিয়ে সারাদেশে অনেক পুলিশ সদস্য মারা গেছে এবং আক্রান্ত হয়েছে, রাঙামাটিতেও আমাদের কয়েকজন সদস্য আক্রান্ত হয়েছে, তারা ক্রমশ সুস্থ্য হয়ে উঠছেন। আক্রান্তদের প্রতিনিয়ত খোঁজ খবর রেখেছেন পুলিশ সুপার মহোদয়। আজকে আমরা ২জন সদস্যকে করোনা মুক্ত হিসাবে পেলাম আমরা তাদের ফুল দিয়ে বরণ করলাম যাতে তারা কর্মক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা পায়।

আক্রান্ত হওয়া পুলিশ সদস্য ও নার্স জানান, করোনাকে ভয় পেলে চলবে না, করোনাকে জয় করতে হবে। এজন্য চিকিৎসক পরামর্শ মত ওষুধ, গরম পানি খাওয়ার পাশাপাশি মনোবল শক্ত রাখতে হবে। আমরা সুস্থ্য হওয়ার পেছনে যে সব চিকিৎসক ও নার্স কাজ করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।


আক্রান্তদের সুস্থ্য করে তুলতে শুরু থেকে একদল নার্স ও চিকিৎসক কাজ করেন।

আক্রান্তদের সেবা দেয়া রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: আয়েশা বেগম জানান, যেখানে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের ২৫জন চিকিৎসক ও নার্স আক্রান্ত হয়েছে সেখানে আমরা কয়জন সাহসিকতার মাথে দায়িত্ব পালন করে তাদের যে সুস্থ্য করতে পেরেছি এখানেই আমাদের স্বার্থকতা।  

এদিকে জেলার মধ্যে বাঘাইছড়ি ও বরকল উপজেলা এখনো পর্যন্ত করোনামুক্ত রয়েছে। বাকিগুলোর মধ্যে রাঙামাটি সদরে আক্রান্ত ৩৭জন, লংগদুতে ৫জন, জুরাছড়িতে ৬জন, বিলাইছড়িতে ২জন, রাজস্থলীতে ১জন,  কাপ্তাইয়ে আক্রান্ত ১১জন, কাউখালীতে ৭জন এবং নানিয়াচরে ১জন আক্রান্ত হয়েছে।


তারিখ অনুযায়ী রাঙামাটি জেলায় ৬ মে শিশু ও নার্সসহ ৪ জন, ১২ মে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের  ১জন নার্স , ১৩ মে চিকিৎসক নার্সসহ ৯ জন, ১৪ মে নারায়ণগঞ্জ ফেরত স্বামী স্ত্রীসহ  ১১ জন, ১৬ মে ১জন নার্স, ১৯ মে একদিনে ১৭ জন, ২২ মে ৩জন, ২৩ মে ২জন, ২৪ মে দু‘দফায় ৭ জন, ২৫ মে লংগদুতে ১জন, ২৮ মে রাঙামাটি ও কাপ্তাইয়ে ২জন, ৩১ মে লংগদু ও কাউখালীতে ২জন, এবং ২র জুন কাপ্তাইয়ে ৭জন এবং ৪জুন কাপ্তাইয়ে ১জন এবং ৫ জুন রাঙামাটি শহরে  আরো ১জনের পজেটিভ আসে। মোট আক্রান্ত ৭০জন।

এরমধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগ সম্পুর্ণ সুস্থ্য ঘোষণা করেছে ৩২জনকে।




রাঙামাটি থেকে আজ শুক্রবার রাত পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১২৭০ জনের, রিপোর্টে এসেছে ১০৩২ জনের, এরমধ্যে আক্রান্ত হয়েছে ৭০জন, বাকি আছে আরো ২৩৮ জনের রিপোর্ট।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions