সোমবার | ২০ জানুয়ারী, ২০২০

চল্লিশ দিনের কর্মসূচীর আওতায় মৈদং ইউনিয়নের পাহাড়ী সড়ক উন্নয়ন শুরু

প্রকাশঃ ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:৪৮:৫৩ | আপডেটঃ ২০ জানুয়ারী, ২০২০ ০৯:৪৮:৪০  |  ২৬২
সিএইচটি টুডে ডট কম, জুরাছড়ি (রাঙামাটি)। রাঙামাটি পার্বত্য জেলার জুরাছড়ি উপজেলা। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মধ্যে খুবই দুগর্ম ইউনিয়ন দুমদুম্যা এবং মৈদং। এই দু’ইউনিয়নে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম সড়ক পথ। অথচ যুগ-যুগ ধরে এ দু’ইউনিয়নে সড়ক উন্নয়নে পিছিয়ে।

মৈদং ইউনিয়নের হাজাছড়ি হতে ফকিরাছড়ি পর্যন্ত মাত্র ৭/৮ কিলো মিটার রাস্তা। এই রাস্তা বেয়ে দুমদুম্যা ও মৈদং ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষ উপজেলায় যাওয়া-আসা করতে হয়। এলাকায় উৎপাদিত পন্যও বাজারজাতের জন্য আনতে হয় এপথে।  দু-তিন মাস আগ পযন্তও ছিল পাহাড়ী উচু-নিচু ঠিলা আর ঝার-জঙ্গলে ভরা। এখন আর সে দৃশ্য বদলে গেছে। ইউনিয়নের হাজাছড়িতে তেছড়ি পর্যন্ত ৫ফুট প্রস্থ্য ৭ কিলো মিটার রাস্তা তৈরী হয়েছে। নিরাপদ-নিবিগ্নে স্কুলে যাচ্ছে শিক্ষার্থী, আসা-যাওয়া করছে সাধারণ মানুষ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তর্পন দেওয়ান জানান, চল্লিশ দিনের কর্মসূচীর আওয়াতায় দু’টি রাস্তা উন্নয়নের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। দু’টি প্রকল্পে ৩৩ জন শ্রমিক কাজ করছেন। তার মধ্যে অর্ধেক নারী রয়েছে।

মৈদং ইউপি চেয়ারম্যান সাধনা নন্দ চাকমা জানান, ছোট যানের (মটরবাই, সিএনজি) মাধ্যমে দ্রুত ও সহজে উপজেলার যোগাযোগ স্থাপনে ক্ষুদ্র আকারে চল্লিশ দিনের কর্মসূচীর মাধ্যমে রাস্তা উন্নয়নে হাত দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো জানান, কর্তৃপক্ষ এ ইউনিয়নের প্রতি একটু দৃষ্টি গোছর হলে দ্রুত সড়ক উন্নয়মের মাধ্যমে স্বল্প সময়ে উপজেলা আসা-যাওয়া সম্ভব।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমান জানান, মৈদং ইউনিয়নের সড়ক উন্নয়ন করা সম্ভব হলে সহজে যাওয়া আসা করতে পারবে ইউনিয়নবাসী। কিন্ত উপজেলা পরিষদের স্বল্প  বরাদ্দে ব্যয়বহুল প্রকল্প হতে নেওয়াই সম্ভব হচ্ছে না-যতটুকু সম্ভব উপজেলা পরিষদ থেকে গ্রামীণ রাস্তা উন্নয়নে চেষ্টা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ড ও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এসব ইউনিয়নে সড়ক উন্নয়নের জন্য সহায়তা প্রদান করলে দু’ইউনিয়নবাসী উপকৃত হবে।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions