শুক্রবার | ১৫ নভেম্বর, ২০১৯

১৫ বছর পর প্রাণ ফিরে পেল রাঙামাটি শহরের একমাত্র শিশু পার্ক

প্রকাশঃ ০৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৪:৫৯:৩২ | আপডেটঃ ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০৭:১২:১৭  |  ৪৩৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। আইনি জটিলতায় ঝুলে থাকা রাঙামাটিবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী রাঙামাটি  শিশু পার্কের উদ্বোধন করা হয়েছে। দীর্ঘ ১৫ বছর  বুধবার সকালে রাঙামাটির একমাত্র শিশু পার্কটি উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের পর প্রাণ ফিরে পেল শিশু পার্কটি।

শহরের রিজার্ভ বাজার এলাকায় অবস্থিত শিশু পার্কটির উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি।
বিভিন্ন জটিলতার কারণে দীর্ঘদিন অবহেলা আর অযত্নে পড়ে ছিল এ শিশু পার্কটি। রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় শিশু পার্কটি উদ্বোধন করা হয়।

পার্কের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এস এম শফি কামাল, পার্ক ব্যবস্থাপনায় কমিটির সদস্য প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, মো. নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

পার্কটি উদ্বোধনের পর রাঙামাটির জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ বলেন, রাঙামাটিতে যে একটি শিশু পার্ক ছিল তা বিভিন্ন জটিলতার কারনে অনেকটা অবহেলিত ছিলো। অবশেষে রাঙামাটিবাসীর জন্য এ পার্কটি নতুনভাবে সাজানো হবে। পাশাপাশি পার্কের যে সব জমি বেদখল হয়ে আছে তা দখলমুক্ত করা হবে। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় পার্কটি আরো দৃষ্টিনন্দন করা হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

শিশু পার্কের  উন্নয়ন ও দৃষ্টিনন্দন করতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড থেকে আরো ১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হবে বলে  জানিয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা।

তিনি  বলেন, রাঙামাটি শহরের একমাত্র শিশু পার্কটি সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা হবে।
উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে তৎকালীন পৌর মেয়র ওই শিশু পার্কের ভেতর কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ শুরু করলেও আদালতে মামলা করে পরিবেশবাদী সংগঠন গ্লোবাল ভিলেজ।

দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৪ সালে নির্মাণাধীন কমিউনিটি সেন্টারটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয় আদালত।

সমস্ত জটিলতা কাটিয়ে জেলা প্রশাসকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও পার্বত্য চট্টগ্রামের সহযোগিতায় উদ্বোধন করা হলো রাঙামাটি শহরের একমাত্র শিশু পার্ক।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions