শনিবার | ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
আদিবাসী দিবস পালনের প্রতিবাদ ও ষড়যন্ত্রকারীদের শাস্তি দাবি বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের

“বাংলাদেশে একমাত্র বাঙালিরাই আদিবাসী”

প্রকাশঃ ০৫ অগাস্ট, ২০১৯ ১১:৩৩:৩৩ | আপডেটঃ ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১১:২০:২৪  |  ৪১৩৭
সিএইচটি টুডে ডট কম ডেস্ক। আজ বেলা ১১টায় পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের উদ্যেগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্য প্রাঙ্গনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ছাত্র পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহাদত ফরাজি সাকিকের সভাপতিত্বে মানবন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান ও পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিদের  প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জি:আলকাছ আলমামুন ভূঁইয়া ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব শেখ আহমেদ রাজু।

মানববন্ধনে প্রধান অতিথি আলকাছ আলমামুন ভুইয়া বলেন, আদিবাসী শব্দটিকে রাজনৈতিক ভাবে স্পর্শকাতর ও ২০০৯ সালে সরকার প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে শব্দটি ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হলেও একটি বিশেষ গোষ্ঠী সংবিধান লঙ্গন করে বাংলাদেশের ক্ষুদ্র নৃতাত্তিক উপজাতি জনগোষ্ঠীকে আদিবাসী হিসেবে প্রচার চালিয়ে আসছে।

তিনি আরো বলেন,এদেশের নৃতাত্তিক গোষ্ঠী কখনই আদিবাসী হতে পারে না। বাংলাদেশে একমাত্র বাঙালিরাই আদিবাসী। বাংলাদেশে আদিবাসী বলে কিছুই নাই।বাংলাদেশে বাঙ্গালীরা আদিবাসী। পার্বত্য এলাকায় চাকমারা এসেছে চম্পক নগর থেকে আর মার মারা (মগ) এসেছে মায়ানমার থেকে। বান্দরবান জেলার সার্কেল চীফ অংসাপ্রু নিজেই বলেছে তারা আদিবাসী নয়। সরকার সাংবিধানিক ভাবে বলেছে উপজাতী বা ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী/ ক্ষুদ্র জাতি সত্ত্বাকে কোন ভাবেই আদিবাসী বলা যাবেনা।

অন্যদিকে সন্তু লারমা স্বাধীনতার আজ দীর্ঘকাল পরেও শহীদ দিবসে শহীদ মিনারে যায় না। কখনও শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধা জানায়নি। স্বাধীনতা দিবসে বা ১৬ ডিসেম্বরে স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ যুদ্ধাদের সম্মানে  স্মৃতিশোধে যায়নি। আজো তিনি বাংলাদেশের প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন করেনি। জাতীয় পরিচয় পত্র ও গ্রহন করেনি। অথচ দেশদ্রোহী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ঢাবির ছাত্র শিক্ষকদেরকে বোকা বানানোর জন্যে সেই পবিত্র শহীদ মিনারকে বেছে নিয়েছে।আমরা তা হতে দিবো না।
তিনি চক্রান্তকারী গোষ্ঠীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে সরকারের প্রতি আহবান জানান।

মানববন্ধনে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হামিদ রানা,পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদের উপদেষ্টা ও সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল মজিদ, পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি মো:তৌহিদুল ইসলাম,পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের ঢাকা মহা নগর আহবায়ক এডভোকেট সারোয়ার,পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের

খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি আসাদুল্লাহ আসাদ,পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি সাহাদাত হোসেন, পার্বত্য বাঙালি ছাত্রপরিষদের ঢাকা মহনগর নেতা ইবরাহিম অপি এবং আল আমিন সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ ও পার্বত্য চট্টগ্রামের নাগরিকরা উপস্থিত ছিলেন।

পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের আহবায়ক কমিটির সদস্য সাহাদাৎ ফরাজি সাকিব প্রেরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions