সোমবার | ২৬ অগাস্ট, ২০১৯

দ্রুত বাড়ছে কাপ্তাই হ্রদের পানি; কাপ্তাই বাঁধ রক্ষার স্বার্থে ১০৭ ফুট নিচে পানি রাখার অনুরোধ

প্রকাশঃ ১৫ জুলাই, ২০১৯ ০৮:২৯:৪৯ | আপডেটঃ ২৬ অগাস্ট, ২০১৯ ১২:৩৯:৩৯  |  ১৮১৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পাহাড়ি ঢল আর ভারতের মিজোরামের বৃষ্টির পানি নেমে আসায় দ্রুত বাড়ছে কাপ্তাই হ্রদের পানি। এতে প্লাবিত হচ্ছে বরকল, বাঘাইছড়ি, লংগদু উপজেলার হ্রদ তীরবর্তী  অঞ্চলের গ্রামগুলো।  জেলায় বন্যা নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে কাপ্তাই বাঁধে ১০৭ ফুট এমএসএল এর নিচে পানি রাখার অনুরোধ করছে জেলা প্রশাসন।

এদিকে বন্যা দুর্গত এলাকায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকট। দেখা দিয়েছে ডায়রিয়াসহ নানান পানিবাহিত রোগ।

কর্নফুলী নদী হয়ে মিজোরামের পানি নেমে আসায় বরকলের আইমাছড়া, ভুষণছড়া, বড় হরিনা, সুবলং ইউনিয়ে প্রায় ১৯টি গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে। পানির স্রোতের কারণে বরকল উপজেলার ত্রান বিতরণ কাজ ব্যহত হচ্ছে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। হ্রদের তলদেশ ভরাট হওয়ার কারণে দ্রুত নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে বলছেন স্থানীয়রা।

এদিকে কাপ্তাই জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলী  এম এ বাশার বলেন, কাপ্তাই হ্রদে দ্রুত পানি বাড়ছে। প্রতি ঘন্টায় দশমিক ১০ ফুট করে বাড়ছে।

হ্রদের ১০৯ ফুট এমএসএল (মিন সী লেভেল) পানির ধারণ ক্ষমতার জায়গা বর্তমানে ১০৪.২৩ ফুট এমএসএল পানি রয়েছে।

এদিকে সোমবার রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন বন্যা নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে কাপ্তাই বাঁধের পানি যেন ১০৭  ফুট এমএসএল এর ভিতরে রাখা দরকার বলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম শফি কামাল।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় পুরো জেলায় ইতিমধ্যে দুর্গত এলাকায় ২২৫ মেট্রিক টন চাউল বিতরণ করা হয়েছে। পুরো জেলায় ৭৩টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। পরিস্থিতি বিগত দিনগুলোর চেয়ে একটু উন্নতি হয়েছে।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions