রবিবার | ২০ অক্টোবর, ২০১৯

মানিকছড়িতে মাদকে ঝুঁকছে যুব সমাজ, উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা

প্রকাশঃ ২৫ জুন, ২০১৯ ০১:৩০:৫০ | আপডেটঃ ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০৬:১৭:১৫  |  ৩৫৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, মানিকছড়ি (খাগড়াছড়ি)। পার্বত্য খাগড়াছড়ির প্রবেশদ্বার মানিকছড়ি উপজেলায় দিন দিন বেড়েই চলেছে মাদকসেবীর সংখ্যা। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সকল বয়সের মাদকসেবীরা অনায়াসে কাছে পাচ্ছে নানা ধরনের মাদকদ্রব্য! এতে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের উজ্জ্বল নক্ষত্রগুলো অকালে পরিবার ও সমাজের বোঝা হতে যাচ্ছে!

জানা গেছে, যাদের হাতে আগামী দিনের আলোর মশাল, যারা সমাজকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে তুলবে, তাদের হাতেই এখন মাদকের কালো ধোয়া। যা একদিকে তাদের সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছে এবং পরিবার পরিজনও নিঃস্ব হতে চলেছে। সমাজ বা পরিবার নতুন প্রজন্মদের কাছ থেকে অনেক কিছু আশা করে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু এখানকার বাস্তব চিত্র হচ্ছে এখন যুব সমাজের হাতে মাদকের ছোঁয়া।

এসব নেশার কারণে সমাজ হারিয়ে ফেলছে ভবিষ্যতের আলোর প্রদীপ। অনেক জনকল্যাণমূলক কাজ থেকে হারিয়ে যাচ্ছে বেশির ভাগ তরুণ। হারিয়ে ফেলছে তার সুন্দর একটি জীবন, অনায়াসে মাদকের ভয়ঙ্কর ঘন অন্ধকারের দিকে। মানিকছড়ি উপজেলার বেশির ভাগ তরুণ এখন মাদকদ্রব্যের পাশাপাশি চোলাই মদ, ইয়াবা, গাঁজা, গামসহ হরেক রকম মাদকদ্রব্য গ্রহণ করার দিকে আগ্রহী হচ্ছেন। তার মধ্যে ইয়াবা কম পাওয়া গেলেও মদ বা বাকি মাদকগুলো পেতে তেমন কষ্ট বা চিন্তা করতে হয় না। টাকা হলেই সহজে মিলে যাচ্ছে বর্তমান তরুণ সমাজ ধ্বংস করার জন্য দায়ী নেশাদ্রব্য। তরুণ প্রজন্মকে ধ্বংস ও তাদের পরিবারের সুখ-শান্তি নষ্ট করার একমাত্র উপাদান বিভিন্ন মাদকদ্রব্য। হোক সেটা কম দামী বা একজন শ্রমিকের এক দিনের পারিশ্রমিকের টাকা বা তারও বেশি।

মানিকছড়ির প্রশাসন নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে রাঘব বোয়ালরা। মাঝে মাঝে পুলিশের অভিযানে অনেকে ধরা পড়লেও অপরাধীরা আইনের ফাঁক ফোঁকর দিয়ে সহজে বের হয়ে এসে আবারও জড়িয়ে পড়ে সেই মাদক ব্যবসায়। উপজেলার গচ্ছাবিল, জামতলা, গবামারা, গচ্ছাবিল চৌধুরী পাড়া, ময়ুরখীল, মানিকছড়ি সদর, রাজপাড়া, মুসলিমপাড়া,মহামুনি, তিনটহরী একসত্যাপাড়া, যোগ্যাছোলা, গাড়িটানাসহ বিভিন্ন জায়গায় অবাধে মাদকের রমরমা বাণিজ্য চললেও প্রতিবাদ কিংবা মাদকসেবীর তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে সহযোগিতা করছে না কেউ।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মানিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কমর্কতা মোহাম্মদ রশীদ জানান, মাদকের ব্যাপারে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতি অনুযায়ী কোনো অবস্থায় মাদক সেবনকারীকে ছাড় দেওয়া হবে না। মাদকসেবীর তথ্য দিয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করলে প্রকৃত বা গডফাদারদের ধরা সহজ হতো। এ ব্যাপারে সবাইকে এগিয়ে এসে তথ্য দিয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান তিনি।

খাগড়াছড়ি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions