বুধবার | ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

কাপ্তাই লেক খননের উদ্যেগ নিচ্ছে সরকার

প্রকাশঃ ০৬ মে, ২০১৯ ১২:২৩:১৮ | আপডেটঃ ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:৫৩:০৫  |  ১৫৮৬
সিএইচটি টুডে ডট কম ডেস্ক। রাঙামাটির থেকে সীমান্তবর্তী ঠেগামুখ পর্যন্ত নাব্যতা যাচাইয়ের জন্য এ লক্ষ্যে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রকল্প প্রস্তাবনা (ডিপিপি) প্রণয়ন করা হয়েছে। গতকাল  ৫ মে রোববার পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিষয়টি জানানো হয়।
বৈঠকে আরও জানানো হয়, প্রণীত ওই ডিপিপির উপর নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়ে গত মার্চে যাচাই কমিটির সভা হয়।

বৈঠকে কাপ্তাই লেককে ব্যবহার করে অধিকতর মৎস্য উৎপাদনের লক্ষ্যে অধিক সংখ্যক পোনা অবমুক্তকরণের উপর গুরুত্বরোপ করা হয়।

বৈঠকে শেষে কমিটির সভাপতি দবিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, “দেশে মৎস্য উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে লেকটি। জেলার একটি বড় অংশের জীবিকাও এর ওপর নির্বাহ করছে। তবে অবৈধ দখল, দূষণ, পলি ভরাটসহ নানা কারণে লেকটি তার স্বকীয়তা হারাতে বসছে। এজন্য এটি খননের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।”

কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ১৯৫৬ সালে কর্ণফুলি নদীর উপর কাপ্তাই বাঁধ নির্মাণ করা হলে রাঙামাটি জেলার বিস্তীর্ণ কৃষি জমি ডুবে যায এবং এ হ্রদের সৃষ্টি হয়।
সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে কাপ্তাই লেককে ব্যবহার করে আরো মৎস্য উৎপাদনের জন্য বেশি সংখ্যক পোনা অবমুক্তকরণের ওপর গুরুত্বরোপ করা হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে পার্বত্য জেলাসমূহের বিভিন্ন হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকে চিকিৎসকদের শূন্যপদগুলোতে দ্রুত নিয়োগ দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্ট চার্চ মসজিদে এবং ইস্টার সানডেতে শ্রীলংকার চার্চ ও হোটেলে বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয় ও নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।
বৈঠকে পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশে সিং এমপি, দীপংকর তালুকদার এমপি, কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, বাসন্তী চাকমা এমপিসহ কমিটির অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


নিউজটি বিডি নিউজ টোয়েন্টি ফোর ডট কম থেকে নেয়া

জাতীয় |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions