শুক্রবার | ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
খাগড়াছড়িতে বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু ভদন্ত স্মৃতিমিত্র মহাথেরো’র ৬৩-তম জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানে বক্তারা

মহামতি বুদ্ধের অহিংস ও মৈত্রী বার্তা বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ন দর্শন হিসেবে ভূমিকা রাখছে

প্রকাশঃ ০৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০৯:৪৫:৩০ | আপডেটঃ ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০৭:০৯:৩৪  |  ২৩২
সিএইচটি টুডে ডট কম, খাগড়াছড়ি। খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে অবস্থিত ‘আর্ন্তজাতিক স্মৃতিধাম বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র’-এর প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ভদন্ত স্মৃতিমিত্র মহাথেরো’র ৬৩-তম জন্মজয়ন্তীতে অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন, গৌতম বুদ্ধের অহিংস ও মৈত্রীর বাণী বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ন দর্শন হিসেবে ভূমিকা রাখছে।

সকল জীবের প্রতি সম-মর্যাদা ও ভালোবাসা এবং ভক্তিবাদের মাধ্যমে পৃথিবীর দেশে দেশে শান্তিময় জীবনের দুয়ার খুলেছে। ত্যাগেই সুখ, ত্যাগেই শান্তি’র মতো অমিয় বার্তার মাধ্যমে তিনি মানুষকে নির্মোহ-অমলিন জীবনের পথ বাতলে দিয়েছেন। আড়াই হাজার বছর আগের মৈত্রী দর্শন ধারাবাহিকভাবে জ্ঞান ও ধ্যান চর্চার জন্য অপরিহার্য্য হয়ে উঠেছে। রোববার দুপুরে দেশের অন্যতম এই ধর্মীয় গুরু’র জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে তিন পার্বত্য জেলাসহ বৃহত্তর চট্টগ্রামের ভক্ত ও অনুগামীরা উৎসব আমেজে শামিল হন।

এই দিবস উপলক্ষে গণপ্রবজ্যা ও উপ-সম্পদা উদযাপন করা হয়।
প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা’র উপ-সংঘরাজ তিলোকানন্দ মহাথেরো।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ-এর চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠানের সাধারণ সম্পাদক কংজরী চৌধুরী সভায় স্বাগত বক্তব্যে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু’র নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশ এখন তাঁর-ই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অসাম্প্রদায়িক নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশে^ আলো ছড়াচ্ছে। সেই আলোতে এ দেশের সকল ধর্ম-বর্ণ ও মতের মানুষের জীবন বিকশিত হচ্ছে।

সমাজকর্মী উজ্জল বড়–য়া’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন মানিকছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ¤্রাগ্য মারমা, অধ্যাপিতা তৃপ্তি রানী বড়–য়া, মাদল বড়–য়া, চম্পক বড়–য়া, বিপ্লব বড়ুয়া এবং রতন বড়–য়া।

এসময় গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পংকজ বড়–য়া, মানিকছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ’র প্রচার সম্পাদক শফিকুর রহমান ফারুক, কমলছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান সাউপ্রু মারমা, পার্বত্য জেলা পরিষদ-এর জনসংযোগ কর্মকর্তা চিংলামং চৌধুরী এবং সাবেক ছাত্রনেতা আবু তাহের মাসুদ।
অনুষ্ঠানের শেষে চট্টগ্রাম বেতারের শিল্পী টিটু বড়–য়া, অর্পিতা বড়–য়া এবং অঞ্জু মল্লিক।
এর আগে ‘স্মৃতিধাম আর্ন্তজাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র’র প্রতিষ্ঠাতা ও মহাপরিচালক ভদন্ত স্মৃতিমিত্র মহাথেরো সমবেত দায়ক-দায়িকাদের উদ্দেশ্যে পূণ্যদান আর্শীবাণী প্রদান করেন।

খাগড়াছড়ি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions