মঙ্গলবার | ২০ নভেম্বর, ২০১৮

মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী কাল

প্রকাশঃ ০৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০৯:৫৪:৪৬ | আপডেটঃ ২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০৬:৩১:৫০  |  ১৮২
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা জুম্ম জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা, সাবেক পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য ও বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদে পার্বত্য চট্টগ্রাম-১ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য পার্বত্য চট্টগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা প্রয়াত মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার (এমএন লারমা)  ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী কাল শনিবার।

১৯৮৩ সালের ১০ নভেম্বর এমএন লারমা আট সহযোগীসহ দলের বিভেদপন্থী প্রীতি গ্রুপের হাতে নির্মমভাবে খুন হন। সেই থেকে প্রতি বছর পাহাড়ের জুম্ম জনগণ প্রতিক্রিয়াশীল, সুবিধাবাদী বিভেদপন্থীদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্যের আহবান জানিয়ে দিবসটি স্মরণ করে আসছে। এবার ‘পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নসহ জুম্ম জাতির অস্তিত্ব সুরক্ষায় এগিয়ে আসুন’ এমন শ্লোগান নিয়ে ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে জেলা এবং উপজেলা সদরে দিনব্যাপী কর্মসূচি গৃহীত হয়েছে। রাঙ্গামটিতে সকালে প্রভাতফেরি, এমএন লারমার প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ, শোকর‌্যালি, স্মরণসভা এবং সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস উত্তোলণ করা হবে।

এমএন লারমা ১৯৭০ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেন এবং পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিকট চারদফা সম্বলিত আঞ্চলিক স্বায়ত্বশাসনের দাবিনামা পেশ করেন। তিনি ১৯৭২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি গঠন করেন এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৭৩ সালের প্রথম বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনসংহতি সমিতির একক প্রার্থী হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রাম-১ আসন থেকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন। ১৯৭৩ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ১৯৭৪ সালে বাকশালে যোগ দেন।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions