মঙ্গলবার | ২০ নভেম্বর, ২০১৮
টেকসই সমাজ উন্নয়ন প্রকল্প

বরকলে পাড়াকর্মী নিয়োগে নতুন করে ইন্টারভিউ কার্ড ছাড়ার দাবি

প্রকাশঃ ০৫ নভেম্বর, ২০১৮ ১০:২১:১৬ | আপডেটঃ ২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:২০:৫১  |  ২৭১৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এর টেকসই সমাজ উন্নয়ন প্রকল্পে বরকল উপজেলায় নতুন করে ইন্টারভিউ কার্ড ছাড়ার দাবি করেছে স্থানীয় চাকুরী প্রার্থীরা। আজ বিকালে রাঙামাটি রিপোটার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, অর্মিতা চাকমা। এসময় চাকুরী প্রার্থী স্বপ্না চাকমা, জোনাকী চাকমা, অর্মিতা চাকমা, রূপালী চাকমা, সঞ্চয় চাকমা, সোনালিকা চাকমা, মনিকা চাকমা, পহেলী চাকমা, মিতা চাকমা, আয়না চাকমা, অনিকা চাকমা, মানসী চাকমা, সুজাতা চাকমা, এলিনা চাকমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, বরকল উপজেলায় পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের অধীনে পাড়াকর্মীর পদ রয়েছে ১৩৭ টি, নতুন ও পুরাতন একত্রে আবেদন করেছেন ২৭১ জন প্রার্থী। তন্মধ্যে বাতিল হয়েছে ৩৪ জনের, মাঠ সংগঠক পদ রয়েছে- ১৪ টি, নতুন ও পুরাতন একত্রে আবেদন করেছে ১৫৭ জন, তন্মধ্যে বাতিল হয়েছে ৩৪ জনের। কিন্তু যাদের বাতিল হয়েছে কি কারণে বাতিল হয়েছে, কেন বাতিল হয়েছে এসব বিষয় জানতে চাইলেও উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তারা তা দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

অভিযোগে তারা বলেন,আর যাদের ইন্টারভিউ কার্ড ইস্যু করা হয়েছে সেগুলোও ত্রুটিপূর্ণ। যেমন- স্বপ্না চাকমার বাড়ী বরকল উপজেলায় ৩ নং আইমাছড়া ইউনিয়নের চাইচাল আইমাছড়া গ্রামে। কিন্তু ইন্টারভিউ কার্ডে তার স্থায়ী ঠিকানা দেখানো হয়েছে তনা পাড়া, অথচ উপজেলা লেখা রয়েছে বাঘাইছড়ি, অফিসের এক কর্মকর্তা বাঘাইছড়ি শব্দটি কেটে দিয়ে বরকল লিখে দেন। তাছাড়াও বরকল উপজেলা থেেেক যত প্রার্থী রয়েছে তাদের পরীক্ষা কেন্দ্র হচ্ছে রাঙ্গামাটি সদরের রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও রাঙ্গামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কিন্তু, স্বপ্না চাকমার পরীক্ষা কেন্দ্র দেওয়া হয়েছে শিশু নিকেতনে। অপরদিকে বরকল উপজেলায় তনা পাড়া নামে কোন গ্রামের অস্তিত্ব নেই।

ইতিপূর্বে বরকল উপজেলায় কর্মরত উপজেলা প্রকল্প ব্যবস্থাপক প্রনয় আলো চাকমা, মাঠ সংগঠক শুভদেব চাকমাসহ উপজেলা কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের স্বেচ্ছাচারিতা, স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির কারণে আমরা ইন্টারভিউ কার্ড বঞ্চিত হই। তাই তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া জরুরী বলে আমরা মনে করি। এ বিষয়টি জানানোর জন্য আমরা স্থানীয় সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদারের নিকট আবেদন জানিয়েছি।

এছাড়া জেলা প্রকল্প ব্যবস্থাপক মঞ্জু মানস ত্রিপুরার কাছে ইন্টারভিউ তারিখ পিছানোর দাবী জানিয়ে দরখাস্ত দেওয়া হয়েছে। পূর্বের সমন্বিত সমাজ উন্নয়ন প্রকল্প শেষ হয়েছে। এরপর পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্প গ্রহনের পর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে নানা সমস্যা ও দুর্বলতা থাকায় ইতিপূর্বে জটিলতা সৃষ্টি হয় বলে আমরা জেনেছি। যদি পুরানো কর্মীদেরই নিয়োগের সিদ্ধান্ত থাকে তাহলে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রয়োজনীয়তা কি ছিল এটাই আমাদের প্রশ্ন।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা বলেন,  টেকসই সামাজিক সেবা প্রদান প্রকল্পের অধীনে পাড়াকর্মী হিসেবে যারা আবেদন করেছেন তাদের বয়স বেশী হওয়ার কারনে হয়তো বা বাদ পড়েছে। তবে শতভাগ স্বচ্ছতা পালন করে আগামী ৯নভেম্বর এ প্রকল্পের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions