মঙ্গলবার | ২০ নভেম্বর, ২০১৮

গুইমারায় বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের নিন্দা জানিয়েছেন উষাতন তালুকদার এমপি

প্রকাশঃ ২৫ অক্টোবর, ২০১৮ ১০:১৫:১৯ | আপডেটঃ ২০ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৩৮:০৩  |  ১৯২৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা হাফছড়ি ইউনিয়নের কুকিছড়ায় জেতবন বিহার এবং বিহারে স্থাপিত বৌধ মূর্তি ভাঙচুরের প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং অনতি বিলম্বে দুস্কৃতিকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শান্তির জোড় দাবি জানিয়েছেন, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ২৯৯নং আসনের সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার (এমপি)।

আজ বৃস্পতিবার সন্ধ্যায় সংবাদ পত্রে স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি তিনি এ দাবি জানান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি বলা হয়, অসাম্প্রদায়িক চেতনা বুকে ধারণ করে সারা দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায় যখন প্রবারণা উৎসব পালনের জন্য প্রস্তুত ছিল তখন গত সোমবার দিবাগত রাত বারোটা থেকে ভোর ৪টার মধ্যে খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা হাফছড়ি ইউনিয়নের কুকিছড়ায় জেতবন বিহার এবং বিহারে স্থাপিত বৌধ মূর্তি ভাংচুর করা হয়। ভাঙচুরের প্রতিবাদে জেলা সদরের অন্যতম উপাসনালয় য়ংড বৌদ্ধ মন্দিরের প্রবারণা পূর্ণিমায় ফানুস উড়ানো বন্ধ রাখার পাশাপাশি উৎসব উপলক্ষে চেঙ্গি নদীতে পঙ্খীরাজ নৌকাও ভাসায়নি সেখানকার বৌদ্ধ ধর্মাবলাম্বীরা।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বর্তমানে ধর্মীয় উৎসবের পাশাপাশি সারাদেশ জাতীয় নির্বাচনে উৎসবমুখী পরিবেশের দিকে ধাবিত হচ্ছে। এসময় ধর্মীয় স্থাপনা ও সংস্কৃতির উপর এমন আঘাত অভ্যন্তনীয় স্থিতিশীলতা ও ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীর নিরাপত্তাকে প্রশ্নবিদ্ধ ও শংকিত করে।

সর্বশেষ তিনি উক্ত ভাংচুরের ঘটনায় বলেন, আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অনতি বিলম্বে দুস্কৃতিকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শান্তির জোড় দাবি জানাচ্ছি।

একই সাথে তিনি সংগঠিত ভাংচুরের কারণে উৎসবের আমেজ  বঞ্চিত সকলের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

পাহাড়ের রাজনীতি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions