শনিবার | ১৭ নভেম্বর, ২০১৮
সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে

একটা সময় আসবে জনগনই অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে : দীপংকর তালুকদার

প্রকাশঃ ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১০:৫১:৪৮ | আপডেটঃ ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০৭:১৭:৩৮  |  ১০৯৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেছেন, অবৈধ অস্ত্রধারীদের কাছে পাহাড়ের মানুষ আর জিম্মি থাকতে চায় না, মানুষের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে, আমরা সেদিনের অপেক্ষায় আছি যে একটা সময় আসবে জনগনই অস্ত্রধারী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। মানুষ এখন বিরক্ত ও তিক্ত।

বুধবার বিকালে রাঙামাটিতে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এসব কথা বলেন। মতবিনিময় কালে উপস্থিত ছিলেন,জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি মুছা মাতব্বর, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক গোলাম মাওলা, প্রচার সম্পাদক মমতাজ উদ্দিন,জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ও জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক অভয় প্রকাশ চাকমাসহ আরো অনেকে।

দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, মানুষ বাক স্বাধীনতা চায়, গনতান্ত্রিক অধিকার চায় কিন্তু অবৈধ অস্ত্রধারীরা মানুষের বাক স্বাধীনতা হরণ করছে, যাদের অধিকার হরণ করছে তারাই (সাধারণ জনগণ) এখন প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। তিনি আরো বলেন, ২০১৪ সনে নির্বাচনে ভোটারদেরকে ভয় ভীতি দেখিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে হাতি মার্কায় ভোট দিতে বাধ্য করে, কিন্ত এবার জনগন আগের মত বসে থাকবে না, বাঁধা এলে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। সময় ঘনিয়ে আসছে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা পালাবার পথ খোজে পাবে না। আগামী নির্বাচনে তারা আর ভোট ডাকাতি করতে পারবে না। এবার তা করতে দেবেনা সাধারণ জনগণ।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, রাঙামাটির আওয়ামীলীগ যাকে চায় তাকেই মনোনয়ন দেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ। তবে শত ভাগ আশাবাদী এ আসন থেকে আমাকে মনোনয়ন দেবেন। সরকারের কাছে বার বার দাবি করে আসছি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে সে অনুপাতে সরকার একটু ধীর গতিতে হলেও ব্যবস্থা নিচ্ছে। আগামীতে আবারো আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় গেলে এখানে পর্যটন শিল্পের উপর গুরুত্ব দিয়ে কাজ করা হবে। এখানে উন্নয়ন করতে গেলে আঞ্চলিক দলগুলো বাঁধা হয়ে দাড়ায়, যার জন্য উন্নয়ন বার বার বাঁধাগ্রস্ত হয়। গত নির্বাচনে ৫৩টি ভোট কেন্দ্রে জেএসএস ভোট ডাকাতি করেছে বলে অভিযোগ তুলেন।
তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের আগে আবারো সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরকারকে নতুন করে অবগত করা হবে। বর্তমান সরকারের আমলেও পার্বত্য এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। মানুষ যদি উন্নয়নের চিন্তা করে তা হলে আবারো আওয়ামীলীগকে ভোট দেবে।



জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর বলেন, জেলা আওয়ামীলীগ থেকে ১৯৯১ সাল হতে একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে আসছে। একাদশ নির্বাচনেও জননেতা দীপংকর তালুকদার ২৯৯নং আসন থেকে মনোনয়ন পাবে। তিনি আরো বলেন, আগামী নির্বাচনে যে কোন কিছুর বিনিময়ে জননেতা দীপংকর তালুকদারকে জয়ের মালা পড়াবো আমরা। এখানে আমরা জেলা আওয়ামীলীগের প্রাণ প্রিয় নেতা দীপংকর তালুকদারের নেতৃত্বে সুসংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ। আমরা আশাবাদী এ আসনে আওয়ামীলীগ জয়যুক্ত হবে।

পাহাড়ের রাজনীতি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions