বুধবার | ২৮ অক্টোবর, ২০২০

গণমাধ্যম বর্জনের সংস্কৃতি, পাঠক প্রতিক্রিয়া : প্রদীপ চৌধুরী

চলতি সপ্তাহে দেশে কয়েকটি বেসরকারি সম্প্রচার মাধ্যমে ইতোপূর্বে প্রচারিত কিছু প্রতিবেদন নিয়ে দেশের পরিচিত ধর্মীয় বক্তারা বিরুপ অবস্থানের জানান দিয়েছেন। তাঁরা সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ উত্থাপনের সাথে সে সব টিভিকে বর্জনের আহ্বান জানিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ

‘কর ফাঁকি’র পাহাড়ে নজর পড়ুক সরকারের -প্রদীপ চৌধুরী

আজকের দৈনিক সমকাল পত্রিকায় একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল ‘তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীর প্রথম শ্রেণীর দুর্নীতি’। সংবাদটি পড়ে সমতলের যেকোন পাঠক আহাম্মক বনে গেলেও পাহাড়ের পাঠকদের কাছে এটি একটি মামুলি খবর। কারণ, তিন পার্বত্য জেলায় তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীদের ক্ষেত্রে এমন দৃশ্য একেবারেই সাদামাটা। তবে অনেক সরকারী কর্মচারীর সন্তান-সন্ততি বা নিকটাত্মীয়ের সহযোগিতা পেয়েই বাড়ি-গাড়ির মালিক হবার নজির থাকতে পারে।

প্রসঙ্গ: পাহাড়ের উত্তপ্ত পরিবেশ : প্রদীপ চৌধুরী

বিশ্বের অন্যতম গ্রহণযোগ্য গণমাধ্যম ‘বিবিসি’ তাঁদের বাংলা মাধ্যমে সাম্প্রতিক সময়ে পার্বত্যাঞ্চলে সংঘটিত সন্ত্রাসী কার্যক্রম নিয়ে আজ (২৭ আগস্ট) একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। দিনের শেষ বেলায় নিশ্চয়ই এটি এরিমধ্যে লক্ষ কোটি মানুষের নজর ছুঁয়ে গেছে।
‘বিবিসি বাংলা’ পার্বত্য চট্টগ্রামের সাম্প্রতিক পরিবেশ নিয়ে তাঁদের বেশকটি প্রতিবেদনে বান্দরবান-রাঙামাটি ও মিয়ানমার সীমান্তে সন্ত্রাসী হামলায় একজন নবীন সৈনিকের মর্মান্তিক মৃত্যু’র পর পরই রাঙামাটির বাঘাইহাট ও খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলায় আরো চার বেসামরিক ব্যক্তির অপমৃত্যু’র ঘটনাকে গুরুত্বসহ বিশ্লেষণ করেছে।

প্রসঙ্গ: রুমিন ফারহানা এমপির প্লট আবেদন : প্রদীপ চৌধুরী

সারাদেশ যখন একজন জেলা প্রশাসকের স্ক্যান্ডাল নিয়ে ব্যস্ত ঠিক একই সময়ে একজন মাননীয় সংসদ সদস্যও দিনভর এই অনলাইন-সে অনলাইন-এ শিরোনাম হয়েছেন। অবশ্য, জামালপুরের জেলা প্রশাসকের কীর্তিকান্ড আর সংসদ সদস্যের কর্মকান্ড; একই পাল্লায় মাপার মতো নয়। তবুও ‘অফলাইন’ আর ‘অনলাইন’-এ দুই জনই সমান গুরুত্ব পেয়েছেন।

পাহাড়ের এনজিও কার্যক্রম বার বার প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে ? প্রদীপ চৌধুরী

পার্বত্য শান্তিচুক্তি’র আগে তিন পার্বত্য জেলায় এনজিও কার্যক্রম একেবারে সীমিত পর্যায়েই ছিল। রাবেতা, ওয়ার্ল্ড ভিশন, কারিতাস, সিসিডিবি ছাড়াও কিছু ধর্মীয় আদলের প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চোখে পড়তো। বিশেষ করে ধর্ম প্রচারের দিকেই এসব সংগঠনের কৌশলী মনোযোগ ছিল বেশি। সে সময়কার পরিস্থিতিও ব্যাপকভাবে সব জায়গায় এনজিও কার্যক্রম চালানোর সহায়ক ছিল না।

পার্বত্য চট্টগ্রাম: মৃত্যুর মিছিল শেষ হবে একদিন ! -প্রদীপ চৌধুরী

গত রোববার মধ্য রাতে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলা সদরের বাবুপাড়ায় প্রতিপক্ষ সশস্ত্র দুর্বৃত্তদের গুলিতে দু’দুটো তরুণের প্রাণ অকালে ঝরে গেছে। প্রায় প্রতিনিয়তই পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের ছোঁড়া বারুদের উত্তাপে মানুষের জীবন বিপন্ন হচ্ছে। চাঁদাবাজি আর সন্ত্রাসে অতিষ্ঠ জনজীবন। তারই ধারাবাহিকতায় মৃত্যু’র মিছিলে যোগ হলো আরও দুটি প্রাণ আরও দুটি নাম। শতসিদ্ধি চাকমা ও এনো চাকমা। এই তালিকা দিনকে দিন দীর্ঘ হতে চলেছে।

মাননীয় জনপ্রতিনিধিগণ জনতার মুখোমুখি হোন প্লিজ: প্রদীপ চৌধুরী

সপ্তাহখানেক আগে একটি বিয়োগান্ত সংবাদের সহমর্মী হতে বাইকযোগে রাঙামাটি যাচ্ছিলাম। পথের দুইপাশে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নানামুখী উন্নয়ন প্রকল্পের সাইনবোর্ড ছিল চোখে পড়ার মতো। আমি বার বার এসব দেখিয়ে সফরসঙ্গীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেষ্টা করছিলাম। তিনিও কিছুটা বাধ্য হয়েই সায় দিলেন। কিন্তু জটিল একটি প্রশ্নেরও অবতারণা করলেন। তিনি বললেন, এসব প্রকল্প সঠিক মানুষের ভাগ্যে জুটেছে কীনা; সেটিও দেখা দরকার।

পাহাড়ের সেরা মায়েরা : ঞ্যোহলা মং

প্রতিবছর মে মাসের দ্বিতীয় রোববার পালিত হয় মা দিবস। দিবস এলে সবাই মাকে নিয়ে ফেসবুকে পোষ্ট দেয়। আমিও একজন সৌভাগ্যবান মানুষ হিসেবে মায়ের উপস্থিতিকে উপভোগ করতে প্রতিদিন ২-৩ বার, কখনো ৫-৬বারও ফোনে কথা বলি। মায়ের দৈনন্দিন প্রয়োজনগুলোর খোঁজখবর রাখার চেষ্টা করি। নিজের সামর্থের মধ্যে হলে দেয়ার চেষ্টা করি। না পারলে সময় চেয়ে রাখি।

আমাদের ডাক্তার মানিক ত্রিপুরা : ঞ্যোহ্লা মং

মহালছড়ি উপজেলায় যতোজন ডাক্তারী পেশায় নিয়োজিত ছিলেন, তাঁদের কতজনকে আমরা মনে রেখেছি? আগামীতে অনেকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে পড়ালেখা করে, এই পেশায় নিয়োজিত হবেন; কিন্তু আমাদের ডাঃ মানিক ত্রিপুরা কিংবা ডাঃ স্বপন চক্রবর্তীর উপরে কেউ কি যেতে পারবেন? তাঁরা উভয়ে বর্তমান সময়ের তুলনায় ততোটা শিক্ষিত (চিকিৎসা বিদ্যায়) নন; কিন্তু এক সময়ে বন জঙ্গলে পরিপূর্ণ মহালছড়িতে তাঁরাই ছিলেন বৈদ্য’র পরে সর্বশেষ ভরসা।

তিনিই নুরুল আলম চৌধুরী :মহসীন কাজী

মুক্তিযুদ্ধ শেষ। শেষ পড়ালেখাও। এবারের ভাবনা জীবিকা। প্রত্যাশা কিছু করা; কর্মের সন্ধান। সে কারণে অংশ নেন প্রথম বিসিএস পরীক্ষায়। কাঙ্খিত ফল পেলেন। এবার সরকারি চাকরিতে যাওয়ার পালা। তার আগে গেলেন নেতার (জাতির জনক) কাছে। জানালেন, বিসিএস পাসের কথা। খুশি হলেন নে

রাঙামাটিতে ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমে আসছে: মোঃ মোস্তফা কামাল

“ম্যালেরিয়ায় আর মৃত্যু নয়” - এই কাংখিত লক্ষ্যে এগুচ্ছে পার্বত্য জেলা রাঙামাটি সহ অপর দুই পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জেলা। বাংলাদেশের ম্যালেরিয়া প্রবন ১৩টি জেলার মধ্যে অধিক ঝুকিপূর্ণ জেলা হিসেবে পরিচিত এই তিন পার্বত্য জেলার ২৬টি উপজেলার ম্যালেরিয়া রোগে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর পরিসংখ্যান ক্রমন্বয়ে নিম্মমুখী হচ্ছে। ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রনে এই সফলতা সকলের মাঝে আশার আলো প্রজ্বলিত করেছে।’

FIND US ON FACEBOOK
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions